আজ ২৭শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ই আগস্ট, ২০২০ ইং

বেতন-ভাতার দাবীতে সড়ক পরিবহন গ্রুপ কর্মচারী ইউনিয়নের মানববন্ধন।

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি:

রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের ২৮৮ জন কর্মচারীর বেতন ও দৈনিক মজুরি চালুর দাবীতে মানববন্ধন করেছে রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপ কর্মচারী ইউনিয়ন।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে নগরীর কামারুজ্জামান চত্ত্বরে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে সড়ক পরিবহন গ্রুপ কর্মচারী ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, রাজশাহী সড়ক পরিবহণ গ্রুপ ও কর্মচারী ইউনিয়নের সদস্যদের কথা ভেবে গত ২৫ মার্চ ২০২০ ইং থেকে ৩১ মে ২০২০ ইং তারিখ পর্যন্ত গণপরিবহণ বন্ধ থাকে। কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশের সংকটময় সময়ে মানুষের কল্যাণের জন্য ১ জুন ২০২০ ইং তারিখ থেকে গণপরিবহণ সীমিত আকারে খুলে দেওয়া হয় এবং সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য কিছু সংখ্যক চেইনমাস্টার দৈনিক মজুরি ছাড়া গাড়ি পরিচালনা করছে।

উল্লেখ থাকে যে, ২৫ মার্চ ২০২০ ইং তারিখ হতে বর্তমান অবধি রাজশাহী সড়ক পরিবহণ গ্রুপের অধিনস্ত কোন কর্মচারীকে প্রভিডেন্ট ফান্ড, গ্রাচ্যুইটি, অবসর কালীন ভাতা প্রদান করা হয়নি। সড়ক পরিবহণ গ্রুপের জন্ম থেকে বর্তমান অধিনস্ত কর্মচারীদের বেতন হিসাবে গাড়ি চলাচলের উপরে রুট অনুযায়ী দৈনিক মজুরি প্রদান করে। যাহার মূল্যায়ন মাসিক সর্বোচ্চ ৭০০০ টাকা বা ৮০০০ টাকার বেশি হয় না।

এদিকে, রাজশাহী জেলা বাস মালিক সমিতি থেকে মাসিক স্ট্যান্ডমাস্টার ২০০ টাকা এবং চেইনমাস্টার ৩০০ টাকা বেতন পাই। এছাড়া আমাদের আর কোন আয় নাই, যা গত ২৫ মার্চ ২০২০ ইং থেকে এখন পর্যন্ত বন্ধ আছে। এমতাবস্থায় সড়ক পরিবহন গ্রুপ কর্মচারী ইউনিয়নের ২৮৮ জন কর্মচারী পরিবার-পরিজন নিয়ে আর্থিক সংকটে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

আনোয়ার হোসেন আরও বলেন, অত্যন্ত দুঃখের সাথে যানাইতে বাধ্য হচ্ছি আমরা কর্মচারীবৃন্দ গাড়ি চলাচল বিষয়ের সমস্ত প্রকার আইন-কানুন ও সময় নিয়ন্ত্রণসহ পরিবহণ ব্যবসাটির ব্যপারে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করি। অথচ কোনো ক্ষেত্রেই কর্মচারী ইউনিয়নের ব্যাপারে কোন প্রকার সুযোগ-সুবিধা কিংবা গুরুত্ব পায় না। উক্ত বিষয় বিবেচনা করে অতি সত্ত্বর সুষ্ঠু সমাধানের দাবী জানান তারা। অন্যথায় কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দেন নেতৃবৃন্দ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইসলাম, সহ-সাধারণ সম্পাদক আরফান উদ্দিন বাপ্পি, দপ্তর সম্পাদক শ্রী মনোরঞ্জন পাল রবি, কোষাধক্ষ্য সাইফুল ইসলাম বাবু, প্রচার সম্পাদক বিপুল হোসেন প্রমুখ।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরো সংবাদ