আজ ২৩শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি অবনতি: নদ- নদীর পানি বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে!

মোঃ মোশফিকুর রহমান স্বপন, সুনামগঞ্জ

টানা ১০ দিন ধরে ভারী বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে সুনামগঞ্জের সুরমা, কুশিয়ারা সহ সকল শাখা ও উপশাখা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদ সীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এতে জেলার অধিকাংশ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।
এদিকে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ বন্যার সতর্কতা জারি করেছে।
পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে ভারতের মেঘালয়ে ও চেরাপুঞ্জিতে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা থাকায় সুনামগঞ্জের সুরমা,পাঠলাই,কামারখালি সহ সবকটি নদ- নদীর শাখা উপশাখা ও হাওরের পানি বেড়ে গিয়ে বন্যার আশংকা দেখা দিয়েছে।
পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ আরও জানায়,আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে নয়টা পর্যন্ত সুরমা নদীর পৌর শহরের ষোলঘর পয়েন্টে বিপদ সীমার ৭ দশমিক ১৬ সেন্টিমিটার অতিক্রম করেছে এবং বিপদ সীমার ৩৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এদিকে জেলার বিভিন্ন পয়েন্ট সরে জমিন ঘুরে জানা গেছে, পাহাড়ি ঢল ও টানা বৃষ্টিপাতের কারণে তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, দোয়ারা বাজার, ছাতক, ধর্মপাশা উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।
এসব উপজেলার কাঁচা ঘর বাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। চলাচলের পাকা সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে। ফলে জন দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।
জেলার আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, ভারতের আসামে বন্যা পরিস্থিতি এবং মেঘালয়ের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ায় সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি ঝুঁকিতে রয়েছে।
এদিকে সুনামগঞ্জের আরফিনগর,ওয়েজখালি, ষোলঘর,নবীনগর, সাহেববাড়ী ঘাট এলাকা প্লাবিত হয়েছে।
ফলে চলাচলে চরম ভোগান্তি দেখা দিয়েছে।
এছাড়াও টানা ১০ দিনের বৃষ্টিপাতে দিনমজুরদের রোজী রোজকার বন্ধ রয়েছে। ফলে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরো সংবাদ