আজ ৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সুরমা ইউনিয়নে সংরক্ষিত মহিলা সদস্যা পদে নির্বাচিত হয়েছেন তানজিনা বেগম রুখশানা

মোবারক হোসাইন,তাহিরপুর(সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের সংরক্ষিত ১,২ ও ৩নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছেন নারীনেত্রী ও সংগীতশিল্পী তানজিনা বেগম রুখশানা। তিনি আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি সাংবাদিক বাউল আল-হেলালের সহধর্মীনি। গত ২৮ নভেম্বর রোববারের নির্বাচনে ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে তালগাছ প্রতীকে ১৪৭৬ ভোট পেয়ে তিনি নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের নেত্রী মিনা পাল মাইক প্রতীকে পেয়েছেন ১০৮৬ ভোট। অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে শাকেরা বেগম ক্যামেরা প্রতীকে ৭৯৯ ভোট,সাহেদা আক্তার বকপাখি প্রতীকে ৯১৮ ভোট,আঞ্জুরা বেগম সূর্যমুখী ফুল প্রতীকে ৮৩০ ভোট ও বর্তমান মহিলা সদস্যা স্বাধীনা আক্তার হেলিকপ্টার প্রতীকে ৩৮৩ ভোট পেয়েছেন। রোববার রাতে সুরমা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দায়িত্বরত রিটার্নিং অফিসার উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অশোক রঞ্জন পূরকায়স্থ উক্ত ফলাফল ঘোষনা করেন। তানজিনা বেগম একজন স্বেচ্ছাসেবী। তিনি বিভিন্ন সময়ে এনজিও সংস্থা ব্র্যাকের স্বাস্থ্যসেবিকা,কেয়ারের পুষ্টি প্রকল্প,ভার্ডের সেলাই প্রশিক্ষক ও পদক্ষেপ এনজিও সংস্থার স্বাস্থ্যসেবিকা পদে কর্মরত ছিলেন। এছাড়াও তিনি বাউল কামাল পাশা সংস্কৃতি সংসদের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা পদে দায়িত্ব পালন করছেন। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের একজন তালিকাভূক্ত সংগীত শিল্পী ছাড়াও বাংলাদেশ বেতার সিলেট কেন্দ্রে বেতার শ্রেুাতা ক্লাবের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন। তিনি বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন। এক বিবৃতিতে তাকে নির্বাচিত করায় নির্বাচনী এলাকার সকল ভোটারদের প্রতি তিনি তার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপার কে অভিনন্দন জানিয়ে তানজিনা বেগম বলেন,বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ইব্রাহিমপুর কেন্দ্রে টেবিল কাস্টিং করে আমার বিজয় ছিনিয়ে নেয়া হয়েছিল। এবার টেবিল কাস্টিংতো দূরের কথা অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করায় জনতার সঠিক রায়ে আমি নির্বাচিত হয়েছি। জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপার যদি ঝুকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার না করতেন তাহলে হয়তো এবারও টেবিলকাস্টিং করে আমাদের মতো নিরীহ প্রার্থীদের বিজয় ছিনিয়ে নেয়া হতো। সুনামগঞ্জ জেলায় এবার এ পর্যন্ত সবকটি ইউনিয়নেই অবাধ,সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে বলে তিনি মতামত ব্যক্ত করেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরো সংবাদ