আজ ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ ইং

দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে দলীয় নেতা অপহরণের অভিযোগ

South Africa, Correspondent:

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী সাঈদ খোকন নামে একজন যুবলীগ নেতা অপহরণের নিয়ে ধোঁয়াশা ঘনীভুত হচ্ছে।গত ১৩ দিন ধরে এই অপহরণ কাহিনী যেন ধোঁয়াশার ধূম্রজালে ঘুরপাক খাচ্ছে।
গত ১৩ দিন আগে সংগঠিত সাঈদ খোকন অপহরণের সাথে দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগ সভাপতি বাদল মৃদা জড়িত বলে ফেইসবুক লাইভে এসে অভিযোগ করেছেন যুবলীগের সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক শাহিন বোখারী নামে একজন দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিক।গতকাল শুক্রবার রাতে নিজ ফেইসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে তিনি এই অভিযোগ করেন এবং নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন বলে জানান।

জানাযায়,গত ৫ এপ্রিল জোহানেসবার্গের রেন্ডফন্টেইনের নিজ দোকান থেকে অপহরণ হয় দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক সাঈদ খোকন।ঘটনার দিন সকাল ৯ টার সময় চারজন সশস্ত্র কৃষ্ণাঙ্গ অস্ত্রধারী সাঈদ খোকনকে অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে টেনেহিঁচড়ে দোকান থেকে বের করে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়।অপহরণকারীরা ঐ দিন সাঈদ খোকনকে জোহানেসবার্গ সংলগ্ন সয়েটো এলাকায় একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে।পরে সাঈদ খোকন অপহরণকারীদের ফাঁকি দিয়ে ঘর থেকে পালিয়ে স্হানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়।এর আগেও কৃষাঙ্গ অস্ত্রধারীরা সাঈদ খোকনকে আরো দুইবার অপহরণ করতে গিয়ে ব্যার্থ হয়েছিল।

অপহরণের ঘটনাটি গত ৫ এপ্রিল সংঘটিত হলেও ঘটনার ১৩ দিন পর দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগের সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক শাহিন বোখারী গতকাল শুক্রবার রাতে ফেইসবুক লাইভে এসে সাঈদ খোকন অপহরণের সাথে দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগের সভাপতি বাদল মৃদা জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন।ফেইসবুক লাইভে শাহীন বোখারী বলেছেন,দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগের সভাপতি বাদল মৃদা কৃষ্ণাঙ্গ দিয়ে সাঈদ খোকনকে অপহরণ করেছে এবং সাঈদ খোকন সহ শাহিন বোখারীকে হত্যার হুমকি দিয়েছে।তাই শাহিন বোখারী নিজেদের নিরাপত্তার জন্য আওয়ামী যুবলীগের সংশ্লিষ্ট নেতাদের কাছে বাদল মৃদার বিচার দাবী করেছেন।

ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে জানযায়,দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগের সভাপতি বাদল মৃদা,সাবেক প্রচার সম্পাদক সাঈদ খোকন, সহ-প্রচার সম্পাদক শাহিন বোখারী ও শুকলাল সহ চার বাংলাদেশী নাগরিক একটি দোকানের ব্যবসায়ীক পার্টনার ছিল।গত পাঁচমাস আগে পার্টনারদের মধ্যে আর্থিক লেনদেন নিয়ে মনোমালিন্য হলে বাদল মৃদা দোকানের পার্টনার ছেড়ে দেয়।শাহীন বোখারী অভিযোগ করেছেন,বাদল মৃদা দোকানের পার্টনার ছেড়ে দেওয়ার সময় সাঈদ খোকন ও শাহিন বোখারীকে খুন করার হুমকি দেয়।

এই দিকে সাঈদ খোকন অপহরণ নিয়ে গত ১৩ দিন ধরে যেন ধোঁয়াশা কিছুতেই কাটছেনা।এই নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা আওয়ামীলীগ, যুবলীগের নেতাদের ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য পাওয়া গেছে।কেউ বলছে, সাঈদ নিজেই অপহরণের নাটক সাজিয়ে বাদল মৃদাকে জড়িয়ে দিয়েছে। আবার কেউ বলছে,বাদল মৃদা ব্যবসায়িক ধন্ধের জের হিসাবে ভাড়াটিয়া কৃষ্ণাঙ্গ দিয়ে নিজ দলের লোক সাঈদ খোকনকে অপহরণ করেছে।

অপহরণের বিষয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা আওয়ামিলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবু নাছের হাজারী বলেছেন,বাদল মৃদা এবং সাঈদ খোকনের আর্থিক লেনদেনের বিষয়টি ইতিমধ্যে সমাধান হয়ে গেছে।তারপরও অপহরণের বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখবেন।

অপহরণের অভিযোগে অভিযুক্ত দক্ষিণ আফ্রিকা যুবলীগের সভাপতি বাদল মৃদা বলেছেন,সাঈদ খোকন অপহরণের সাথে ফেইসবুক লাইভে এসে আমার বিরুদ্ধে শাহীন বোখারী মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়েছে।দক্ষিণ আফ্রিকায় দলীয় কোন্দল সৃষ্টির জন্য এবং আমার সুনাম নষ্ট করতে একটি গ্রুপ পরিকল্পিত ভাবে এই কাজটি করেছে।আমি সাঈদ খোকন অপহরণের সাথে কোনভাবেই জড়িত নয় বরং সাঈদ খোকন অপহরণ হওয়ার পর থাকে উদ্ধার করার জন্য বাংলাদেশে এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় আইনি সহযোগিতা জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়েছি।বাদল মৃদা অপহরণের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করেছেন।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরো সংবাদ