আজ ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ ইং

নোয়াখালীর সেনবাগে নিখোঁজের ৪ দিন পর খালের পাশে মিলল ৬ বছরের শিশুর মরদেহ!

ফখরুদ্দিন মোবারক শাহ রিপন,বিশেষ প্রতিনিধিঃ

নোয়াখালীর সেনবাগে নিখোঁজ হওয়ার চার দিনপর খালের পাশে ধানের জমিন থেকে পুলিশ এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে।

নিহত আশরাফুল ইসলাম মিজান (৬),উপজেলার ৩নং ডমুরুয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড বাবুপুর শ্রীপুর গ্রামের মীর বাড়ির আবুল কাশেম মীর এর মেজো ছেলে।

সোমবার (৫ এপ্রিল) সন্ধ্যায় সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার ৪ নং কাদরা ইউনিয়নের চাঁদপুর তেলিপুকুর বাজারের পশ্চিমে খালের উত্তর পাশে নজরপুর সীমানায় ধানের জমিন থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়সূত্রে জানা যায়- সেনবাগের ৪নং কাদরা ইউনিয়নের নজরপুর গ্রামে জিতু সওদাগর নামক তাঁর নানার বাড়িতে মা সহ বেড়াতে এসে গত (২ এপ্রিল) শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে নিখোঁজ হয় আশ্রাফুল। এরপর থেকে বিভিন্ন বাড়ীতে ও পুকুরে অনেক খোঁজা খুজি করে, এলাকার বিভিন্ন মসজিদে এবং সিএনজি যোগে সেনবাগের হাট- বাজারে মাইকিং এর মাধ্যমে প্রচার করলেও কোন সন্ধান মিলেনি শিশুটির। পরে এ ঘটনায় একই দিন সন্ধ্যায় তার পিতা সেনবাগ থানায় জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করেন।

সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবদুল বাতেন মৃধা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে ওই শিশুটিকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে খালের পাশে ধান ক্ষেতে কে বা কাহারা মরদেহ ফেলে রেখে যায়। ঘটনার চার দিন পর স্থানীয় কৃষক হামিদ নামে এক ব্যক্তি বিকেলের দিকে তাঁর ধানের জমিতে ধান দেখতে গেলে শিশু আশরাফুল ইসলাম মিজানের মরদেহ দেখতে পায়।

ওসি মৃধা আরো বলেন, পরে পুলিশ খবর পেয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
আজ মঙ্গলবার মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। পুলিশ এ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে চেষ্টা চালাচ্ছে। পরবর্তীতে নিহতের পরিবার এ ঘটনায় মামলা দায়ের করবেন বলে তিনি জানান।
এঘটনায় পুরো এলাকা জুড়ে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরো সংবাদ