আজ ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ ইং

নোয়াখালীতে সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে দাগনভূঞায় রিপোর্টার্স ইউনিটি’র মানববন্ধন।

দাগনভূঞা (ফেনী) প্রতিনিধি:
কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামীলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে দাগনভূঞা রিপোর্টার্স ইউনিটি’র আয়োজনে মানববন্ধন ও  প্রতিবাদ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়োছে।
রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে দাগনভূঞা জিরো পয়েন্টে  এ কর্মসূচি পালিত হয়।
উক্ত মানববন্ধনে ইউনিটি’র সভাপতি এম এইচ মালদারের সভাপতিত্বে ও সহ-সভাপতি নাজমুল হকের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ফেনী প্রেসক্লাব একাংশের সভাপতি জসীম মাহমুদ, সাবেক সভাপতি ও আর টিভি’র জেলা প্রতিনিধি আজাদ মালদার, ফেনী প্রেসক্লাব একাংশের যুগ্ম- সম্পাদক ও আজকের প্রতিক্রিয়া’র প্রধান সম্পাদক এবি এম নিজাম উদ্দিন, দাগনভূঞা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক ইনকিলাব প্রতিনিধি সৈয়দ ইয়াছিন সুমন, দাগনভূঞা পৌরসভার প্যনেল মেয়র নুরুল হুদা সেলিম, বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সভাপতি আবুল কায়েস রিপন, দৈনিক ইত্তেফাক প্রতিনিধি ওসমান গণি, অনলাইন নিউজ পোর্টাল  চ্যানেল সংবাদ চেয়ারম্যান হাসনাত তুহিন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাইফ উদ্দিন মিঠু, সহ-সভাপতি,  সহ-সাধারণ সম্পাদক আবদুল মুনাফ পিন্টু, নির্বাহী সদস্য তাহেরুল ইসলাম।
মানববন্ধনে সাংবাদিক হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তারা বলেন, সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যাকাণ্ডের ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও হত্যাকারীদের গ্রেফতার করা হয়নি।
 দ্রুততম সময়ের মধ্যে দায়ীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দিতে হবে এবং সারাদেশের সাংবাদিকদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে সুষ্ঠু ও নিরাপদ পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। অন্যথায় সাংবাদিকদের এই আন্দোলন আরও বেগবান হবে।
উক্ত মানববন্ধনে রিপোর্টার্স ইউনিটি’র সকল সদস্যসহ, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার শতাধিক সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, ১৯ ফেব্রুয়ারি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চাপরাশিরহাট বাজারে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ শুরু হলে তা থামাতে উভয়পক্ষের ওপরে অ্যাকশনে নামে পুলিশ। ত্রিপক্ষীয় সংঘর্ষে গুলিবর্ষণের ঘটনাও ঘটে। এসময় বেশ কয়েকজন গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন। তাদেরই একজন মুজাক্কির। উন্নত চিকিৎসা দিতে ঢাকায় আনা হলেও তাকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরো সংবাদ