আজ ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

দর্শনার্থীদের নজর কাড়ছে মুজিব কর্ণার।

কাজী ইফতেখারুল আলম:

দাগনভূঞা উপজেলার মাতুভূঞা ইউনিয়ন পরিষদে মুজিব কর্নারটি গত ১৭ই মার্চ উদ্বোধন হয়। উদ্বোধন হওয়ার পর থেকেই আনাগোনা বাড়ছে দর্শনার্থীদের।

কর্নারটি ঘুরে দেখা গেছে, শিশু-কিশোর, যুবক-বৃদ্ধ থেকে শুরু করে সব বয়সের মানুষ ঘুরে দেখছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন, কর্মের ওপর সাজানো বিভিন্ন আলোকচিত্র। হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু, স্মৃতিতে বঙ্গবন্ধু, বঙ্গবন্ধুর জীবনী ইত্যাদি শিরোনামে সাজানো হয়েছে ।

আলোকচিত্রগুলোতে ফুটে উঠেছে বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক ও ব্যক্তিগত জীবনের নানা মুহূর্ত। মুজিব কর্নারে শোভা পাচ্ছে শতাধিক বই। এটি সাজানো হয়েছে আকর্ষণীয় সাজে।

মুজিব কর্ণার দর্শনার্থী সরকারি ইকবাল মেমোরিয়াল কলেজের শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলাম তুহিন বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুকে দেখিনি। তার সম্পর্কে অনেক কিছুই জানি না। যতটুকু জেনেছি মা-বাবা কাছ থেকে শুনে ও বই পড়ে। ইউনিয়ন পরিষদে মুজিব কর্ণার করায় এখান থেকে আমরা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারছি। তিনি দেশের জন্য, মানুষের জন্য কি করছেন। আমাদের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে পারছি। তাই আমি সময় পেলেই এখানে বই পড়তে আসি।

মাতুভূঞা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল্লা আল মামুন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আমরা এ মুজিব কর্ণার করেছি। কর্ণার করার পর আমরা ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। সব বয়সের মানুষ এ মুজিব কর্ণার দেখতে আসছেন। এখান থেকে আমাদের আগামীর প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু আদর্শ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বড় হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘মুজিব কর্নারে রয়েছে শতাধিক বই। বঙ্গবন্ধু রচিত দু’টি গ্রন্থ, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিভিন্ন লেখকের লেখা গ্রন্থগুলো ও কাব্যগ্রন্থ কর্নাটিতে স্থান পেয়েছে।

Comments are closed.

     এই বিভাগের আরো সংবাদ